অধ্যাপক নাজির আহমদ ও শিক্ষা ক্ষেত্রে বাঙ্গালীদের অগ্রযাত্রা

অধ্যাপক নাজির আহমদ ১৮৯৬ সালে ২৬ আগষ্ট সীতাকুণ্ডের মুরাদপুর ইউনিয়নের গোপ্তাখালী গ্রামে জন্ম গ্রহন করেন । তৎকালীন শিক্ষানুরাগী ব্যক্তিদের মধ্যে তিনি একজন । চট্টগ্রাম জেলার সীতাকুণ্ড থানার প্রথম এম এ ডিগ্রি অর্জন করেন । তিনি এমন একজন শিক্ষক ছিলেন যার বহু ছাত্র ভারত, পাকিস্থান, ও স্বাধীন বাংলাদেশের বিনির্মানে গৌরবোজ্জ্বল ভূমিকা রেখেছেন । স্বাধীন বাংলাদেশের প্রতিষ্ঠাতা জাতিরজনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের শিক্ষক অধ্যাপক নাজির আহমদ । নাজির আহমদ প্রিন্সিপাল হিসেবে তিনি ছিলেন সমধিত পরিচিত । বঙ্গবন্ধু তার ‘অসমাপ্ত আত্নজীবনী’ গ্রন্ত্রে শিক্ষক নাজির আহমদ প্রিন্সিপালের কথা উল্লেখ্য করেছেন । বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান তাঁর এ প্রিয় শিক্ষক নাজির আহমদ প্রিন্সিপালকে সরকারি খরচে হজ্জব্রত পালনের জন্য সৌদি আরবে পাঠাতে একটি চিঠি ও তাঁর গ্রামের বাড়ীর ঠিকানায় পাঠিয়েছিলেন । কিন্তু বার্ধক্যজনিত শারীরিক জটিলতার কারনে তাঁর পক্ষে হজ্ব পালন করতে সম্ভব হয়নি ।

১৯১৩ সালে সীতাকুণ্ড হাই স্কুল প্রতিষ্ঠা হলে প্রথম ছাত্র হিসাবে এই স্কুলে ভর্তি হন । ১৯১৭ সালে অনুষ্টিত প্রবেশিকা পরীক্ষায় ফার্স্ট ডিবিশনে মার্কাস থাকা সত্ত্বে ও গনিতের জন্য তিনি অকৃতকার্য হন । ঐ সময় সীতাকুণ্ড হাইস্কুলের প্রধান শিক্ষক শ্রী অপর্ণাচরণ দে স্বীয় পদ থেকে ইস্তফা দিয়ে জাফরনগর অর্পণাচরণ উচ্চ বিদ্যালয় প্রতিষ্ঠা করেন । অর্পাণা বাবু তার প্রিয় মেধাবী ছাত্র নাজির আহমদকে জাফরনগর উচ্চ বিদ্যালয়ে নিয়ে যান । সেখান থেকে প্রবেশিকা পরীক্ষা দেওয়ার প্রয়োজনীয় সব ব্যবস্থা করেন । নাজির আহমদ কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধীনে জাফরনগর হাই স্কুল থেকে ১৯১৮ সালে অনুষ্টিত প্রবেশিকা পরীক্ষায় প্রথম বিভাগে উত্তীর্ণ হন । ১৯২০ সালে কলকাতা সুরেন্দ্র নাথ ব্যানার্জী কলেজ থেকে আই. এ. এবং ১৯২২ সালে বি.এ. পাশ করেন । ১৯২৪ সালে কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ইতিহাসে এম.এ পরীক্ষায় দ্বিতীয় শ্রেনীতে উত্তীর্ণ হন ।

শিক্ষাজীবন শেষে অধ্যাপক নাজির আহমদ ১৯২৫ সালে জুন মাসে সীতাকুণ্ড মাদ্রাসার সুপারিন্টেন্ডেন্ট হিসাবে যোগ দিয়ে এক বছর শিক্ষকতা করেন । এরপর তিনি ১৯২৬ সালে ৩ জুলাই টাঙ্গাইলের করটিয়া সাদত কলেজে-এ ইতিহাসের অধ্যাপক হিসাবে যোগদান করেন । অধ্যাপক নাজির আহমদ ১৯৩০ সালে ২১ জুলাই পাবলিক সার্ভিস কমিশনের মাধ্যমে কলকাতা ইসলামিয়া কলেজে ইতিহাসের প্রভাষক হিসেবে সরকারি চাকুরীতে যোগদান করেন । ১৯৪৭ সালে ৬ জানুয়ারী তিনি অধ্যাপক হিসেবে পদোন্নতি লাভ করেন । ঐ কলেজের বেকার হোস্টেলের সহকারী সুপারিন্টেন্ডেন্ট হিসাবে দায়িত্ব পালন কালে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান কলেজ ছাত্র হিসেবে সেই হোস্টেলে থাকতেন । ইসলামিয়া কলেজে শেখ মুজিবুর রহমান চার বছর নাজির আহমদের প্রিয় ছাত্র ছিলেন । এছাড়া নাজির আহমদ চট্টগ্রাম কলেজে ভাইস প্রিন্সিপাল ও ফেনী কলেজে প্রিন্সিপাল হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন ।

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ছাড়া ও বিভিন্ন কলেজে তাঁর উল্লেখ্যযোগ্য ছাত্ররা হলেন- যাদুশিল্পী পি.সি সরকার, ড. আব্দুল কাদের, ড. তুষার কান্তি বড়ুয়া, ব্যারিস্টার এ টি এম মোস্তফা, ভাষাসৈনিক গোলাম মাহাবুব, দেশের প্রথম স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ক্যাপ্টেন মনসুর আলী, ইস্টবেঙ্গল রেজিমেন্টের প্রতিষ্ঠাতা মেজর আব্দুল গনি, সাংবাদিক কে. জি. মোস্তফা, সাংবাদিক সিরাজ উদ্দিন হোসেন, জাতীয় অধ্যাপক নুরুল ইসলাম, ডায়াবেটিক সমিতির প্রতিষ্ঠাতা ড. মোহাম্মদ ইব্রাহীম, ড. আলমগীর মুহাম্মদ সিরাজুদ্দিন, ড. মুহাম্মদ আলী, ভারতেশ্বরী হোমস এর প্রতিষ্ঠাতা প্রতিভা মুৎসুদ্দি, মানবাধিকার কর্মী তালেয়া রহমান সহ উপমহাদেশের খ্যাতনামা অনেক ব্যক্তিত্ব ।
১৯৭৯ সালে ১৬ ডিসেম্ভর অধ্যাপক নাজির আহমদ মৃত্যুবরণ করেন ।

তথ্য: সীতাকুণ্ড সমিতি-চট্টগ্রাম
আলম-লায়লা ফাউন্ডেশন
মেধাবী শিক্ষার্থী সংবর্ধনা
২০১৭ সাল
৩ পৃষ্ঠা

ভালো লাগলে শেয়ার করুন

ব্লগার জিতু চৌধূরী

মুক্ত চিন্তার মানুষ

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।