আমরা কি পরিবর্তন হবো ?

আমি একটি বিষয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে এগিয়ে রাখি । উগ্র মৌলবাদীদের থেকে কৌশলে দেশকে রক্ষা করার জন্য সংগ্রাম করে যাচ্ছেন । জানি না উনি না থাকলে দেশের কি হবে । আমি দল নয়, ব্যক্তি বিশেষ কিছু রাজনীতিবীদদের সন্মান করি । হোক সে আওয়ামীলীগ কিংবা বিএনপি । তাই আমার দৃষ্টি থাকে প্রতীক নয় ব্যক্তি কেন্দ্রিক । আওয়ামীলীগ, বিএনপি ছাড়া ও ছোট ছোট দলের অনেক রাজনীতিবীদ আছেন যাদের শ্রদ্ধা করতে বাধ্য হই । বিশ্ব রাজনীতি এখন ব্যবসায়ীদের দখলে । আমেরিকা থেকে শুরু করে বাংলাদেশ পর্যন্ত রাজনীতে বেশ সক্রিয় ভাবে রাজনীতি শুরু করেছেন ব্যবসায়ীরা । কেন ? পৃথিবীর অর্ধেক সম্পত্তি নাকি ব্যবসায়ীদের দখলে ! আসলে কি তাই । তাই, এটাই সত্য, তবে কেন ওরা রাজনীতিতে যুক্ত হলেন ? প্রতিযোগিতার বাজারে এখন ছোট বড় সবাই রাজনীতি করছেন । কেন ? আমাদের মগজে কি সত্যি টাকা বাদীরা ডুকে গেছে ! তাই হয়ত বা, তা না হলে দান বাক্সের ভেতরের অবস্থা বলে দেয় আমরা কোন পথে হাটছি । সেই যাই হোক, পাকিস্থান উগ্রতা থেকে মুক্তি পাচ্ছে না । ভারতে ও একি অবস্থা । পাকিস্থান আর ভারতের উগ্রতার পার্থক্য হলো, পাকিস্থানের উগ্রতা সেই দেশের অর্থনীতিতে সরাসরি প্রভাব ফেলে আর ভারতের উগ্রতা সেই দেশের অর্থনীতি তেমন কোন প্রভাব ফেলে না । যুক্তি দেখাবো না, নিজেদের যুক্তি দিয়ে ভাবুন । সেই দিক দিয়ে কিছুটা বাংলাদেশকে এগিয়ে রাখছি । তার কারণটা হলো আমাদের জাতীয় উগ্রতা এখন ও তেমন মাথাছাড়া দিয়ে উঠে দাড়াতে পারেনি । দেশের মঙ্গলের জন্য দেশের ভালোর জন্য আপনাকে অবশ্য যে কোন উগ্রতা ত্যাগ করতে হবে । বাংলাদেশের ভাগ্য ভালো আমাদের দেশের সার্বভৌমত্ব (বর্ডার) আশেপাশে ভারতের অবস্থান । যদি পাকিস্থান হতো ? ট্রানজিট বিষয়ে এই দেশের সুশীল সমাজ দেশ গেলে বলে টকশোতে গলাবাজি শুরু করে দেয় । অথচ আমরাই আবার ইউরোপীয় ইউনিয়নকে সমর্থন করি । মূর্খ মানুষরা দেশের হালচাল নিয়ে হইচই করলে ও তেমন চিন্তা করি না তবে একজন বিবেকবান মানুষ যখন বুঝে ও গলাবাজি করে তখন বিষয়টা পরিস্কার হয়ে যায় এবং চিন্তা করতে বাধ্য হই । সেদিন গনতন্ত্রের জন্য লড়াই করা এক ব্যক্তিকে দেখলাম, ধর্ষনের বিষয়ে তিনি পুরুষদের লিঙ্গ কর্তনের পক্ষে । আবার বিচার ব্যবস্থা এত ধীর গতি কেন, সেটা ও তিনি মেনে নিতে পারেন না । অথচ তিনি গনতন্ত্রের পক্ষে । দেশে হয়ত গনতন্ত্র নেই তবে পাকিস্থানের মত উগ্রতা ও নেই । কোনটি চাইবেন উগ্রতা নাকি গনতন্ত্র ? বিষয়টা আপনার ব্যক্তিগত তবে দেশটা ব্যক্তিগত নয় । আমি অবশ্য এত চিন্তা করি না । দেশের মানুষরা যেন পেট ভরে তিন বেলা ভাত খেতে পারে, সেই আশায় করি । যতই যাই বলুন, আমরা মাছে ভাতে বাঙ্গালী ।

ভালো লাগলে শেয়ার করুন

ব্লগার জিতু চৌধূরী

মুক্ত চিন্তার মানুষ

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।