আমার কলমে লিখুন

কিভাবে আমার কলম ব্লগে লেখা যায় !

আমার কলম ব্লগে লেখালেখি খুবই সহজ। মূলত সকল ধরণের বৈজ্ঞানিক, যুক্তিবাদী ও সাহিত্যিক লেখা আমার কলমে প্রকাশের নিমিত্তে তিনধাপে লেখক ক্যাটাগরি রাখা হয়েছে।

নিচ থেকে উপরে

এসব লেখকের বিস্তারিত আওতা এবং নিয়ম জানুন বিস্তারিত নিচে…

পাঠক অথবা অতিথি লেখক কিভাবে লিখে ?

একজন পাঠক কিংবা অতিথি লেখক নিবন্ধন না করেও ব্লগের ই-মেইল ([email protected]) মাধ্যমে ব্লগের নীতিমালা অনুসরণে আমার কলমে লেখা পাঠাতে পারেন সেক্ষেত্রে প্রকাশযোগ্য হলে লেখা অতিথি লেখক একাউন্ট থেকে প্রকাশ হতে পারে , তাছাড়া একজন পাঠক ও অতিথি লেখক ব্লগে প্রকাশিত সকল লেখা সরাসরি পড়তে, রেটিং দিতে এবং লেখাসমূহে সরাসরি প্রতিক্রিয়া অথবা মন্তব্য জানাতে পারেন, ব্লগ সম্পাদক প্যানেল দ্বারা সে মন্তব্য অনুমোদিত হলে তা দেখা যাবে। ( মন্তব্য করতে ব্লগপোষ্টের নিচে ডিফল্ট কমেন্ট সেকশানে যেখানে আপনার নাম, ই-মেইল এড্রেস তৎক্ষণাত লিখে অথবা একই ব্রাউজারে ফেসবুক লগিন থাকা অবস্থায় ফেসবুক কমেন্ট সেকশনে গিয়ে মন্তব্য করুন [বি:দ্র: ফেসবুক মন্তব্য সরাসরি প্রকাশিত হয়, যদিও তা ব্লগ সম্পাদক প্যানেল নজরে রাখেন )। তবে নিবন্ধন করে ব্লগে লেখার ক্ষেত্রে আমরা আপনাকে উৎসাহিত করছি।

কিভাবে নিবন্ধিত লেখক হবো ও লিখতে পারবো ?

একজন লেখক নিবন্ধন করলে এবং নিবন্ধন অনুমোদন হলে সরাসরি নিজের একাউন্টে লগইন করে ইচ্ছেমতো লেখা সাজিয়ে পুনর্বিবেচনার জন্য ব্লগ সম্পাদকের কাছে জমা দিতে পারে এবং ব্লগ সম্পাদক প্যানেল মানযাচাই পূর্বক ১২ ঘন্টার মধ্যে তা অনুমোদন করলে নিবন্ধিত লেখকের আইডি থেকে সে লেখা প্রকাশিত হবে অন্যথায় প্রকাশ হবে না। একইভাবে একজন নিবন্ধিত লেখক প্রকাশিত লেখায় মন্তব্য করতে পারেন এবং তা ব্লগ সম্পাদক অনুমোদন করলে সরাসরি প্রকাশ হবে। নিবন্ধিত লেখক হতে চাইলে কিভাবে নিবন্ধন করবেন তা নিচে দেখুন।

নিবন্ধন করবো কিভাবে?

ব্লগে নিবন্ধন প্রক্রিয়া অতিসহজ এবং দ্রুত। ডেস্কটপ থেকে আমার কলম ব্লগ ব্রাউজ করলে ডান পাশের সাউডবারে এবং মোবাইল থেকে ব্রাউজ করলে একদম উপরে বাম পাশের মেনুতে ক্লিক করলে নিবন্ধন করুন অথবা স্ক্রল করে একদম নিচে প্রবেশ পথ দেখতে পাবেন, এর নিচেই আছে নিবন্ধন করুন অপশন। সেখানে ক্লিক করলেই নিবন্ধন ফর্ম আসবে। তারপর নিচের পদ্ধতি অনুসরণ করে আপনি আমার কলম ব্লগে নিবন্ধন করতে পারবেন।

১ম ধাপ:

নিবন্ধন ফর্মে ( ব্যবহারকারী নাম ) এর ঘরে অবশ্যই কোন স্পেস ছাড়া ইংরেজী অক্ষরে নামের সাথে নিউমেরিক কি ব্যবহার করুন এভাবে  [উদহরণ: admin অথবা ‍amarkolom235] একসাথে লাগানো, অন্যথায় নিবন্ধন এরর দেখাবে। ( স্পেস এবং স্পেশাল ক্যারেকটার গ্রহণযোগ্য নয়)

২য় ধাপ:

এরপর ( ইমেইল ) এর ঘরে আপনার সচল ই-মেইল ঠিকানাটি দিন।

৩য় ধাপ:

( আপনার নামের প্রথম অংশ বাংলায় লিখুন ) এর ঘরে অবশ্যই বাংলায় আপনার নাম অথবা আপনার পছন্দমতো ছদ্ম নাম লিখুন অন্যথায় ব্লগ এডমিন প্যানেলে এপ্রোভাল সিস্টেমে নিবন্ধন সফল হবে না।

৪র্থ ধাপ:

( আপনার নামের শেষ অংশ বাংলায় লিখুন) ) এর ঘরে অবশ্যই বাংলায় আপনার নাম অথবা আপনার পছন্দমতো ছদ্ম নাম লিখুন অন্যথায় ব্লগ এডমিন প্যানেলে এপ্রোভাল সিস্টেমে নিবন্ধন সফল হবে না। মনে রাকতে হবে নামের প্রথম অংশের পাশাপাশি নামের শেষ অংশ অবশ্যই লিখতে হবে।

৫ম ধাপ:

( পাসওয়ার্ড ) এর ঘরে আপনার পছন্দমতো পাসওয়ার্ড ব্যাবহার করুন এবং ( পাসওয়ার্ড নিশ্চিত করতে পুনরায় লিখুন ) এর ঘরে আপনার পূর্ব ব্যবহৃত পাসওয়ার্ডটি আবারো দিন। যদি পাসওয়ার্ড দুটি একই না হলে আপনাকে তাৎক্ষণাত স্ক্রিনে মিলছে না দেখানো হবে। আর পাসওয়ার্ড একই হলে পাসওয়ার্ডটি কতটা শক্তিশালী তা স্ক্রীনে দেখানো হবে। [ পাসওয়ার্ড শক্তিশালী করতে হিন্ট দেওয়া থাকবে, তা ফলো করতে পারেন]

৬ষ্ঠ ধাপ:

নিবন্ধন প্রক্রিয়ার প্রায় শেষ ধাপে আছে ( জীবন বৃত্তান্ত ) এবং এই ঘরে আপনার সম্পর্কে সংক্ষিপ্ত করে বাংলায় ১০০ শব্দের পরিচিতি দিতে পারেন যা, জনসমক্ষে দেখা যাবে অথবা না চাইলে খালি রাখুন। এরই মধ্য দিয়ে আপনার লেখক নিবন্ধন প্রক্রিয়ার আবেদন প্রায় শেষ হবে।

লক্ষ্য করুন, নিবন্ধন প্রক্রিয়া সম্পন্ন হওয়ার পর পর আপনি লগ ইন করতে পারবেন না। পরবর্তী ২৪ ঘন্টার মধ্যে আমার কলম ব্লগ সম্পাদক প্যানেল যথাযথ তথ্য যাচাই সাপেক্ষে আপনার নিবন্ধন অনুমোদন/বাতিল করবেন। ব্লগ সম্পাদক নিবন্ধন অনুমোদন করলে আপনার প্রদত্ত ই-মেইল ঠিকানায় জানিয়ে দেওয়া হবে। ২৪ ঘন্টার মধ্যে কোন প্রকার ই-মেইল আপনার ইনবক্সে দেখতে না পেলে ই-মেইলের স্প্যাম বক্স চেক করুন। পরবর্তী যেকোন সমস্যার জন্য এই ই-মেইলে [[email protected]] যোগাযোগ করুন। দ্রুত সমস্যা সমাধানে কলম বদ্ধ পরিকর।

 

পূর্ণাঙ্গ লেখক কিভাবে হবো এবং পূর্ণাঙ্গ লেখক কিভাবে লিখে ?

একজন পূর্ণাঙ্গ লেখক ব্লগ সম্পাদকের পুণর্বিবেচনা ছাড়া সরাসরি নিজেই ব্লগে লেখা প্রকাশ করতে পারে, অনুমোদন ব্যতিত সরাসরি মন্তব্য করতে পারে। সরাসরি কাউকে পূর্ণাঙ্গ লেখক আইডি দেওয়া হয়না। মূলত নিবন্ধিত লেখক থেকে অথবা অতিথি লেখক থেকে পূর্ণাঙ্গ লেখক হওয়া যায়। আপনার ক্রমাগত প্রকাশিত লেখার মান ভালো হলে তার উপর ভিত্তি করে আমার কলম সম্পাদক প্যানেল আপনাকে পূর্ণাঙ্গ লেখক আইডি প্রদান করবেন এবং ই-মেইলের মাধ্যমে তা নিশ্চিত করা হবে।

 

নিবন্ধিত লেখকগণ লেখা ফরম্যটিং কিভাবে করবে ?

১ম করণীয়:

ব্লগের ডানপাশের সাইডবারে এটি অবস্থিত

নিবন্ধন সফল হলে ব্যবহারকারী ( ইংরেজী নিকনেম ) অথবা ই-মেইল এবং পূর্বে প্রদত্ত পাসওয়ার্ড ব্যবহার করে আপনি ব্লগে প্রবেশ করতে পারবেন। ব্লগে প্রবেশ করার পর ডান পাশের সাইডবার থেকে ড্যাশবোর্ড পাতায় গেলে ব্লগপোষ্ট লেখার জন্য উপরের টুলবারে  নতুন  চিহ্ন দেখতে পাবেন সেখানে প্রকাশনা ক্লিক করলে সরাসরি ব্লগপোষ্ট লেখার উইন্ডোটি আসবে। এটিই আপনার ব্লগ লেখার জায়গা। মনে রাখতে হবে যে, ব্লগে ইউনিকোডে লেখা কপি পেষ্ট করতে হ

ড্যাশবোর্ডের টপমেনুতে অবস্থিত

বে অথবা লিখতে হবে অন্যথায় লেখা দেখা যাবেনা।

আপনার লেখাটি কি বিজয় ফন্টে আছে, ইউনিকোডে কনভার্ট করতে চান?

বিজয় থেকে ইউনিকোডে পরিবর্তন করতে বাংলা কনভার্টার  ব্যবহার করতে পারেন। সরাসরি এখান থেকে কপি পেষ্ট করে ব্লগিং করুন।

২য় করণীয়:

এড টাইটেল বক্সে আপনার নির্ধারিত ব্লগপোষ্টের শিরোনাম লিখবেন বা কপি পেষ্ট করবেন। তারপরের নিচের বড় বক্সে আপনার ব্লগের মূল বিষয়বস্তু বা বিস্তারিত লিখবেন অথবা পেষ্ট করবেন। বক্মে লেখা পেষ্ট করার পর আপনার লেখাগুলোকে বিভিন্নভাবে সাজাতে বক্সের সাথে লাগানো উপরে থাকা অপশনগুলো একবার দেখতে পারেন।

+নতুন ক্লিক করার পর এটি আসবে

এই অপশনগুলো মাইক্রোসফট ওয়ার্ডের অপশনের মতোই। এগুলো ব্যবহার করে আপনি আপনার লেখাটিকে আরো বেশি গুরুত্বপূর্ণ এবং সুন্দর করতে পারেন। বক্সের উপরে থাকা এসব অপশনগুলোতে আপনার মাউসের কার্সর নিয়ে গেলে অপশনটির কাজ কি তা হিনটস আকারে ভেসে উঠবে।

৩য় করণীয়:

ডানপাশের সাইডবারে এটি অবস্থিত

বক্সের লেখা সাজানো শেষ হলে, আপনার ডেস্কটপের ডান পাশের বক্স করা ক্যাটাগরি লিষ্ট দেখতে পাবেন সেখান থেকে  আপনার ব্লগটি কি সম্পর্কিত সে বিষয়ে এক বা একাধিক বিভাগ অবশ্যই সিলেক্ট করবেন, অন্যদিকে কোন ক্যাটাগরি সিলেক্ট না করলে আপনার লেখাটি ডিফল্ট ক্যাটাগরি হিসেবে মতামতে চলে যাবে।

৪র্থ করণীয়:

ডানপাশের সাইডবারে এটি অবস্থিত

ক্যাটাগরি নির্বাচনের কাজ শেষ হলে তারপর আপনার ব্লগ বিষয়ক এক বা একাধিক ট্যাগ কমা দিয়ে সংযুক্ত করতে পারেন, ট্যাগ সংযুক্ত করার মানে আপনার লেখার কী-ওয়ার্ডগুলো দেওয়া যাতে গুগলে বা অন্য সার্চ ইন্জিনে পাঠক তা সহজে খোঁজে পায় ।অথবা সব’চে বেশি ব্যবহৃত ট্যগগুলো থেকেও আপনি বেছে নিতে পারেন। ট্যাগ সংযুক্ত করা ঐচ্ছিক।

৫ম করনীয়:

ডানপাশের সাইডবারে এটি অবস্থিত

শেষধাপে ডেস্কটপের ডান পাশের (ফিচারড ইমেজ ক্লিক করে) আপনি চাইলে লেখা বিষয়ক যেকোন ছবি যুক্ত করতে পারেন আবার ছবি সংযুক্ত না করলেও সমস্যা নেই, তবে নিজের ছবি ব্লগে যুক্ত না করার অনুরোধ জানাচ্ছি।

৬ষ্ঠ এবং শেষ করণীয়:

উপরের ধাপমতে সবকিছু সঠিকভাবে হয়ে গেলে পূর্ণাঙ্গ লেখকরা প্রকাশ করার আগে এবং নিবন্ধিত লেখকরা ব্লগ সম্পাদকের নিকট পুনর্বিবেচনার জন্য জমা দেওয়ার আগে একবার প্রাকপ্রদর্শন ক্লিক করে দেখে নিবেন কোন প্রকার ত্রুটি আছে কিনা, সবকিছু ঠিকঠাক থাকলে পূর্ণাঙ্গ লেখকরা প্রকাশ এবং নিবন্ধিত লেখকরা পুনর্বিবেচনার জন্য জমা দিন বাটনে ক্লিক করুন। এরপর পূর্ণাঙ্গ লেখকদের লেখা সরাসরি প্রকাশ হবে এবং নিবন্ধিত লেখকদের লেখা ব্লগ সম্পাদকের অনুমোদনের জন্য অপেক্ষমাণ হিসেবে থাকবে এবং ১২ ঘন্টার মধ্যে লেখাটি প্রকাশ হতে পারে, ১২ ঘন্টা পার হওয়ার পরেও প্রকাশ না হলে ধরে নিতে হবে লেখাটি আমার কলম ব্লগের নীতিমালা ভঙ্গণ করেছে।

আরো বিস্তারিত সহযোগিতা পেতে আমাদের ই-চিঠি পাঠানোর অনুরোধ রইলো।

error: আমার কলম কপিরাইট আইনের প্রতি শ্রদ্ধশীল সুতরাং লেখা কপি করাকে নিরুৎসাহিত করে। লেখার নিচে শেয়ার অপশন থেকে শেয়ার করার জন্য আপনাকে উৎসাহিত করা হচ্ছে।