প্রকৃতি কিংবা ঈশ্বর

()

সময় ফুরিয়ে যায়,
প্রেমিকার গাঢ় চুম্বনহীন।
ছোট্ট শিশুটি কতদিন হাঁটেনা
তার পিতার বুড়ো আঙুল ধরে সবুজ ঘাসে।

প্রতিটি জলজ্যান্ত মাছ, পাখি, বৃক্ষ
এখানে রঙিন হয়ে দৌঁড়োয়।

মশা এবং হাতির প্রাণ এক ও অভিন্ন
আমরা অহরহ মশাকে হত্যা করেছি,
কিন্তু বাঁচাতে চেয়েছি একটি হাতিকে,
স্থুলকায় দেহ বুঝি এ তফাৎ সৃষ্টি করে।

মানুষ কি এমন ছুটি চেয়েছিলো?

বাস্তব প্রকৃতিকে
আমরা আদর করে ডাকি ঈশ্বর।

ঈশ্বর কখনো চায়নি তার মৃত্যু,
তবুও আমরা খুনি
খুন করেছি প্রকৃতি অতঃপর ঈশ্বরকে।

লেখাটি কতটুকু গুরুত্বপূর্ণ?

লেখার উপরে এই লেখার মোট রেটিং দেখুন

এখন পর্যন্ত কোনও রেটিং নেই! এই পোস্টটি রেটিং করুন

ব্লগপোষ্টটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন

ব্লগার শিপ্ত বড়ুয়া

পৃথিবীর পথে গন্তব্যহীন পরিব্রাজক

একটি মন্তব্য

  1. কান্তু শমা

    দাদা,ভালো লাগল কবিতাটি পড়ে।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

error: আমার কলম কপিরাইট আইনের প্রতি শ্রদ্ধশীল সুতরাং লেখা কপি করাকে নিরুৎসাহিত করে। লেখার নিচে শেয়ার অপশন থেকে শেয়ার করার জন্য আপনাকে উৎসাহিত করা হচ্ছে।