বাংলাদেশের ই-কমার্সের ইতিহাস

()

১৯৯৭ সালে ই-কমার্সের যাত্রা শুরু হয়। ১৯৭১ মতান্তরে ১৯৭২ সালে ARPANET ব্যবহার করে মারিজুয়ানা বিক্রি হয় স্ট্যানফোর্ড আর্টিফিসিয়াল ইন্টেলিজেন্ট ল্যাব এর স্টুডেন্টদের সাথে ম্যাসাচুসেট ইন্সটিটিউট অফ টেকনলজির স্টুডেন্টদের মধ্যে।

১৯৭৯ সালে মাইকেল আল্ড্রিচ প্রথম অনলাইন শপিং এর ডেমো দেখান।শুররু দিকের ই-কমার্স আজকের মত ছিল না তখন ব্যবসায়ীরা নিজেদের সুবিধার্থে অনলাইনে কেনাকাটা করত।অর্থ্যাৎ এটা ছিল বি২বি।বর্তমানে চার ধরনের ই কমার্স দেখা
যায় ।যথা বিটুবি , বিটুসি,সি২সি,বি২জি।বিটুবি হচ্ছে বিজনেসঅম্যান টু বিজনেসম্যান অর্থ্যাৎ এটা শুধু ব্যবসায়ীদের মধ্যে কেনাকাটা।বিটুসি হচ্ছে বিজনেসম্যান টু কনজুমার ।অর্থ্যাৎ যখন ক্রেতা সরাসরি বিক্রেতার সাথে ডিল করে তখন তা বিটুসি।
সি টু সি অর্থ্যাৎ কনজুমার টু কনজুমার এক্ষেত্রে ওয়েবসাইটটি শুধু মার্কেট প্লেসের কাজ করে ক্রেতারাই নিজেদের জিনিস নিজেদের মধ্যে ক্রয় বিক্রয় করে।যখন ক্রয় বিক্রয় সরকার এবং ব্যবসাপ্রতিষ্ঠানের মধ্যে হয় হয় তখন সেটা বিটুজি।

বাংলাদেশে ই-কমার্সের সূচনা হয় ১৯৯৯ মতান্তরে ২০০০ সালে বাংলাদেশের প্রথম ইকমার্স সাইট মুন্সিজিডটকম.২০০ সালে শুরু হলেও এটি বিকাশ শুরু করে ২০০৯ সালে বাংলাদেশ ব্যাংকের অনলাইন লেনদেন অনুমোদন করার মাধ্যমে ।এরপর ২০১৩ সালে
ডেবিট ও ক্রেডিট কার্ড ব্যবহার করে অনলাইন পেমেন্টের অনুমোদন দিলে বাংলাদেশে ই-কমার্সের গতি আরো বেড়ে যায়.২০১১ সালে যাত্রা শুরু করে বাংলাদেশের অন্যতম জনপ্রিয় ই-কমার্স সাইট সেলবাজার ডট কম যার বর্তমান নাম এখনি ডট কম এবং আজকের
ডিল ডট কম.২০১৩ সালে যাত্রা শুরু করে এখন পর্যন্ত দেশের সবচেয়ে জনপ্রিয় সাইট রকমারি.২০১৪ সালে ই-ক্যাব প্রতিষ্ঠা বাংলাদেশের ই-কমার্স ব্যবসাকে আরো ত্বরানিত করে .২০১৫ সালে বাংলাদেশে ৪০০০ কোটি টাকার ব্যবসা হয় এ খাতে ।অদুর ভবিষ্যতে ই-কমার্স বাংলাদেশে
জনপ্রিয়তা লাভ করবে ।কারণ বাংলাদেশের মানুষ এখন অনলাইনে ব্যবহারে অভ্যস্ত ।এখন তাদের কাছে ই-কমার্স এর সুবিধা তোলে ধরতে পারলেই সফলতা আসবে ।

লেখাটি কতটুকু গুরুত্বপূর্ণ?

লেখার উপরে এই লেখার মোট রেটিং দেখুন

এখন পর্যন্ত কোনও রেটিং নেই! এই পোস্টটি রেটিং করুন

ব্লগপোষ্টটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন

ব্লগার রাকিবুল হাসান

আমি রাকিবুল হাসান জামালপুর থেকে।আমি সমাজবিজ্ঞান তৃতীয় বর্ষের ছাত্র,ভাওয়াল বদরে আলম সরকারী কলেজ এবং বিশ্ববিদ্যালয় ।আমি পেশাদার লেখক নয়।লিখতে ভাল লাগে তাই নিজের মত লিখি।আমার আরো কিছু ভাল লাগার বিষয় হচ্ছে ডিজাইন,ফিল্ম,ভ্রমণ।আমার কোন অর্জন নেই বললেই চলে ।তবে জীবন সংগ্রামে থেমে যেতে রাজি নয়,তাই প্রতিনিয়ত ছুটে চলার সংগ্রাম করছি।সার্চইংলিশ ,ডিজিটাল স্কিলস ফর বাংলাদেশ,নিজের বলার মত একটি গল্প ফেসবুক গ্রুপের সদস্য। আমার ফেসবুক প্রোফাইল লিংকঃhttps://www.facebook.com/rokibul.rokibul.77 জি-মেইলঃ[email protected]কোন লিঙ্কডইন আইডি নেই।আমি আমার নিজের উপর বিশ্বাস করি।এটাই আমার শক্তি।

৩ টি মন্তব্য

  1. তথ্যবহুল লেখা। বিশেষ করে বাংলাদেশে ই-কমার্স আশান্বিত কোন সফলতা পায়নি বললে চলে। ইতিহাস কলমে লেখা থাকুক।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

error: আমার কলম কপিরাইট আইনের প্রতি শ্রদ্ধশীল সুতরাং লেখা কপি করাকে নিরুৎসাহিত করে। লেখার নিচে শেয়ার অপশন থেকে শেয়ার করার জন্য আপনাকে উৎসাহিত করা হচ্ছে।