ধর্ম

শিবকে কিভাবে দেখি

“শিব” আমার কাছে বরাবরই আদর্শ। আমি ছোটবেলা থেকেই শিবকে আমার মধ্যে ধারণ করার চেষ্টা করি। আমি কম্যুনিষ্ট হয়েছি শিবকে ধারণ করার মধ্যদিয়ে। শিব সত্য না মিথ্যা তা নিয়ে কথা বলা আমার কোনোকালে প্রয়োজনীয় মনে হয়নি। আমার কাছে সর্বদা গুরুত্ব পেয়েছে শিব নামক চরিত্রটি। যেসব মেহনতি মানুষের দ্বারা সমাজে অগ্রগতির চাকা ঘোরে তারাই আবার সেই চাকার তলে পিষ্ট হয়। তারাই থাকে অনালোকিত, বিভিন্ন সাহিত্যে তারাই গুহক,তারাই চণ্ডাল,তারাই ব্রাত্য কিংবা তারাই অবহেলিত …

বিস্তারিত পড়ুন

আমি আদর্শবাদী নই, বাস্তবিক

আমরা ঠিক করেছি শোষণহীন সমাজের আদর্শ কমিউনিজম। এখানেই আমার আপত্তি। কারণ মার্কসের আগে সমাজবাদী ও সমাজতন্ত্রীরা আদর্শ বলতে নৈতিক, শুদ্ধ মঙ্গলকর সমাজের কথা চিন্তা করতেন। এবং তার জন্য আন্দোলন সংগ্রাম করেছেন। মার্কস এই আদর্শবাদকে খারিজ করে দিয়েছেন। বরং বাস্তব সংকট পুঁজি, মুজরি ও সেলামির বিলোপ চান। তিনি বদলে দিতে বলেন বাস্তবতাকে। স্বাভাবিক ভাবেই পুঁজি না-থাকলে, সেখানে সামাজিক প্রক্রিয়া চালু হবে, সেইটাই তখনকার বাস্তবতা। এইটা বস্তুগত অধ্রুব সত্য। এখানে আদর্শের কোন …

বিস্তারিত পড়ুন

আর নয় বাল্যবিবাহ

বাল্যবিবাহ কে না বলুন সমাজ থেকে বাল্যবিবাহ নামের কুসংস্কারকে দুর করুন। দেশের আর্থসামাজিক প্রেক্ষাপট বিবেচনায় বাল্যবিবাহ অত্যন্ত ভয়াবহ একটি সমস্যা হিসেবে দেখা দিয়েছে। বাল্যবিবাহ নিরোধ আইন অনুসারে বাল্যবিবাহ বলতে বাল্যকাল বা নাবালক বয়সে ছেলেমেয়েদের মধ্যে বিবাহকে বোঝায়। এ ছাড়া বর-কনে উভয়ের বা একজনের বয়স বিয়ের দ্বারা নির্ধারিত বয়সের চেয়ে কম বয়সে হলে তা আইনে বাল্যবিবাহ বলে চিহ্নিত। জনসংখ্যাতত্ত্বের দিক দিয়ে অপেক্ষাকৃত প্রাপ্তবয়সে বিবাহ সুবিধাজনক। ভবিষ্যতে সন্তানের মা যিনি হবেন, তাঁকে …

বিস্তারিত পড়ুন

দ্বন্দ্ববাদ অবধারণা

রূপান্তরের এক পদ্ধতি : অবধারণা হচ্ছে চেতনা ও বাস্তবের পারস্পরিক ক্রিয়া প্রতিক্রিয়ার মাধ্যমে নতুন জ্ঞানার্জন । কোনো বিজ্ঞান শুধু অতীতের জ্ঞানার্জনের ফলই নয়, নতুন নতুন সত্য আবিষ্কারেরও হাতিয়ার । অর্থাৎ যে কোনো মানবিক জ্ঞান নতুন জ্ঞানার্জনেরও পদ্ধতি । সেই অর্থে দ্বান্দ্বিক বস্তুবাদ নতুন জ্ঞানার্জনের একটি পদ্ধতি এবং তত্ত্বগতভাবে এই পদ্ধতির গরুত্ব অপরীসীম । ডায়ালেকটিকস নতুন জ্ঞানার্জন ও ব্যবহারিক ক্রিয়াকলাপের সবচেয়ে সাধারণ ও সার্বিক এক পদ্ধতি । তত্ত্বগতভাবে তা বিকাশের প্রবণতাকে …

বিস্তারিত পড়ুন

দ্বন্দ্ববাদের মূলনীতিসমূহ

বস্তুজগৎ এবং মানুষের চেতনা বিকাশের বিশ্বজনীন সংযোগ এবং বিশ্বজনীন নীতিগুলোর বিজ্ঞান হচ্ছে দ্বন্দ্ববাদ । এবার আমরা এর মূলনীতিগুলো আলোচনা করবো । (ক) বিকাশের বিশ্বজনীন সংযোগ ও মিথষ্ক্রিয়ার নীতি : বস্তু ও ব্যাপারসমূহের সংযোগ হলো বস্তুজগতের সাধারণ নীতি । পৃথিবীর সব বস্তু, প্রক্রিয়া ও ব্যাপারসমূহ অভিন্ন বস্তুগত চরিত্র থেকে উদ্ভুত হয় । বিশ্বজনীন : কোনো বস্তু বা ঘটনার জন্ম, পরিবর্তন, অর্থাৎ গুণগতভাবে এক নতুন অবস্থায় পৌঁছানো বিচ্ছিন্নভাবে সম্ভব নয় । সবসময় …

বিস্তারিত পড়ুন

দ্বন্দ্ববাদ, সার্বিক সংযোগ ও বিকাশের মতবাদ

একটি বিজ্ঞান হিসেবে দ্বন্দ্ববাদ : এঙ্গেলস দ্বন্দ্ববাদ বা ডায়ালেকটিকসের সংজ্ঞা নিরূপন করেছেন এভাবে, দ্বন্দ্ববাদ হচ্ছে সমস্ত গতি ও বিকাশের বিশ্বজনীন নিয়মগুলোর বিজ্ঞান । জগতের সব বস্তু ও ঘটনাপ্রবাহ সামগ্রিক রূপের এক প্রকাশ, এখানে কোনো কিছুই খণ্ডিত নয় । প্রতিটি বিষয় অবশিষ্ট জগতের সাথে যুক্ত আছে । বস্তু ও ঘটনাপ্রবাহের নিরন্তর বিকাশ হচ্ছে । এই বিকাশের মধ্যে আছে সুশৃঙ্খলা, নিয়মানুবর্তিতা ও সুসম্পর্ক । গভীর সম্পর্কের বন্ধন, অখণ্ড সামগ্রিক বিষয়গত বন্ধন, বিকাশের …

বিস্তারিত পড়ুন

“গণতন্ত্র ও ইসলাম ধর্ম”

গণতন্ত্র হল একটি ইহজাগতিক ব্যবস্থা। যা মানুষের ব্যক্তিস্বাধীনতায় বিশ্বাস করে। জগতে মানুষের জীবন যাপন কেমন হবে তা বহিঃবিশ্ব থেকে কেউ এসে ঠিক করে দিয়ে যায় না বা কাউকে দিয়ে করায় না। বরং মানুষই স্বাধীন মতামতের ভিত্তিতে ঠিক করে সামাজিক আইন-কানুন, নীতি-নৈতিকতা ও মূল্যবোধ। মূল্যবোধের ভিন্নতা নিয়ে ব্যাপক আলোচনা রয়েছে তা অন্য জায়গায় করব। আমরা এখানে ধর্মের সাথে গণতন্ত্র যায় কি-না তা বুঝার চেষ্টা করছি। আমরা জানি গণতন্ত্র বিকাশের পথকে রুদ্ধ …

বিস্তারিত পড়ুন

স্থান ও কাল

বস্তুর একটি নির্দিষ্ট আকৃতি আছে, পরিমাণ ও গঠনকাঠামো আছে । বস্তুসমূহ পরস্পরের সাথে একটা সম্পর্কে আবদ্ধ এবং একটা ধারাবাহিকতা তৈরি করে । একটি অপরটির পূর্বগামী হয় বা একটি অপরটিকে প্রতিস্থাপিত করে । বস্তুসমূহের এসব গুণ-ধর্ম বোঝায়, এগুলোর অস্তিত্ব আছে স্থানে ও কালে । স্থান ও কাল বস্তুর অস্তিত্বের বিশ্বজনীন রূপ । স্থান : স্থানের ধারণাটি বস্তুসমূহের অবস্থানের বৈশিষ্ট্য নির্ণয় করে । স্থান পদার্থসমূহের বিস্তার, সহাবস্থান প্রকাশ করে । স্থানিক সম্পর্কের …

বিস্তারিত পড়ুন

ভাবনার এরোপ্লেন

বাঙালি একাত্তরে নিজেদের একটা ভুখন্ড, স্বাধিকার এবং অর্থনৈতিক মুক্তির আশায় লড়াই শুরু করে। আর তখনই সাংস্কৃতিক মুক্তির প্রশ্নে লড়তে লড়তে অল্পসংখ্যক সচেতন বাঙালি আবিষ্কার করে এসব অর্জন করতে হলে তাকে ইসলামের বিরুদ্ধেও যুদ্ধ করতে হবে। কারণ ইসলাম মিশে আছে পাকিস্তানের আত্মায়। অধিকাংশ বাঙালিই কাজটা সচেতনভভাবে করেনি, এটা সত্য। তবে যুদ্ধটা করেছিল মরণপন।পুরো যুদ্ধটাতেই পাকিস্তান দাবি করেছিল, প্রচার করেছিল এবং বিশ্বাস করেছিল ইসলামের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র হিসেবে। তাই তারা বেছে বেছে হত্যা করছিল …

বিস্তারিত পড়ুন

গৌতম বুদ্ধ ভগবান বা অবতার নয়

গৌতম বুদ্ধের আর্ভিবাব হয়েছিল পরিবেশ ও প্রতিকূলতাকে জয় করে । সিদ্ধার্থের মাধ্যমে গৌতম বুদ্ধের জন্ম । পৃথিবীতে জ্ঞানের স্বাদ দেওয়া গৌতম বুদ্ধ হয়ে ওঠেন মানুষের কাছে ভগবান ও অবতার । কি ভাবে একজন জ্ঞানী ব্যক্তিকে ভগবান বা অবতার রুপে মানুষেরা মেনে নিয়েছে, তাহা আমার জ্ঞানের বাহিরে বিষয় । দশ অবতার বইয়ে লেখা আছে,বুদ্ধদেবের দর্শনে একশত, স্পর্শনে এক সহস্র এবং আরাধনাতে লক্ষ লক্ষ পাপ বিনষ্ট হইয়া যায় । (দশ অবতার, ১১৫ …

বিস্তারিত পড়ুন

দ্বন্দ্বমূলক বস্তুবাদের বস্তু নিয়ে ভাবনা

বস্তুর ধারণা নিয়ে আলোচনায় এঙ্গেলসের বক্তব্য সামনে আসে । তাঁর মতে পৃথিবীর সাথে মানুষের একটি ব্যবহারিক সম্পর্ক আছে । বস্তুই প্রধান । বস্তু থেকে চেতনার উদ্ভব । জগৎকে জানা সম্ভব । এটি হচ্ছে দর্শনের বুনিয়াদী প্রশ্নের উত্তর । এই কাঠামোর মধ্যেই কেবল বস্তুর সংজ্ঞা নির্ণয় করা যায় । এঙ্গেলস বলেছিলেন, বস্তুর প্রত্যয় বা ধারণাটি হলো একটি বিমূর্তন, অর্থাৎ বাহ্যিক পৃথিবীর বস্তুসমূহ, প্রক্রিয়াসমূহ, এবং এর সম্পর্কের অসীম বৈচিত্র্যের এক সার্বিক প্রতিফলন …

বিস্তারিত পড়ুন

দ্বন্দ্বমূলক বস্তুবাদের সৃজনশীল বৈশিষ্ট্য

মার্কস ও এঙ্গেলসের দ্বান্দ্বিক ও ঐতিহাসিক বস্তবাদ মৌলিকভাবেই সৃজনশীল । এর কারণসমূহ হচ্ছে – (১) পরিবর্তনশীলতা : এই দর্শন প্রতিমুহূর্তে পরিবর্তনশীল । মার্কসবাদ প্রতিমুহূর্তে প্রাকৃতিক জগৎ এবং সমাজ জীবনের নির্দিষ্ট ঐতিহাসিক অবস্থার ব্যাখ্যা ও পরিবর্তন সংক্রান্ত কাজের ভেতর দিয়ে নানা বৈজ্ঞানিক ডাটা বা উপাত্ত দ্বারা নিজেকেও সমৃদ্ধ করে । (২) শ্রমিক শ্রেণির সমাজবদলের হাতিয়ার : দ্বন্দ্বমূলক বস্তুবাদ সৃজনশীল হওয়ার এবং বিকশিত হওয়ার কারণ এ দর্শন হচ্ছে বিপ্লবী শ্রমিক শ্রেণির সমাজ …

বিস্তারিত পড়ুন

দর্শনে মার্কসবাদ একটি বিপ্লব

মহামতি মার্কস ও এঙ্গেলস সৃষ্ট দ্বন্দ্বমূলক বস্তুবাদ হচ্ছে দর্শনের ইতিহাসে এক বুনিয়াদি বিপ্লব । এটি বিজ্ঞানের অগ্রযাত্রায়ও একটি বিপ্লব । আমরা যদি ইতিপূর্বে সৃষ্ট দর্শনের সাথে মার্কসবাদকে মেলাই তা হলে তফাৎ দেখতে পাবো । দেখতে পাবো মার্কস ও এঙ্গেলস সৃষ্ট নতুন উপাদানগুলো । (১) মার্কসীয় তত্ত্বের সামাজিক দিক : মার্কস-এঙ্গেলস সৃষ্ট দ্বন্দ্বমূলক বস্তুবাদের সামাজিক গুরুত্ব হচ্ছে তাদের দর্শন শ্রমিক শ্রেণির বিশ্ব দৃষ্টিভঙ্গি । তাঁরা দর্শনের সকল প্রশ্নের উত্তর দিয়েছিলেন শ্রমিক …

বিস্তারিত পড়ুন

ইসলামপূর্ব আরবে নারীর অবস্থা

ইসলামে বলা হয় ইসলামপূর্ব আরবে নারীর অবস্থা শোচনীয় ছিলো। ইসলাম উদ্ধার করে তাদের। সব ধর্ম ব্যবস্থাই তার পূর্বের ধর্মের বিরুদ্ধে অপপ্রচার করে। ঐতিহাসিক ভাবে সাধারণত সেটি সত্যি হয় না। আরব নারীদের ইতিহাসে জানা যায়- ইসলামপূর্ব আরবে অনেক বেশি স্বাধীনতা ও অধিকার ছিলো নারীর। তারা অবরোধে থাকতো না, তারা সব ধরণের সামাজিক কর্মকাণ্ডে অংশ নিতো। তাদের প্রাধান্যও ছিলো সমাজে। ইসলামপূর্ব আরবে কিংবা মোহাম্মদ যখন সবে তার ধর্ম প্রচার শুরু করছেন তখনও …

বিস্তারিত পড়ুন

তত্ত্বগত পূর্বশর্তসমূহ

মার্কসীয় দর্শনের আত্মপ্রকাশ নির্ভর করেছিলো সে যুগে দর্শন যতটুকু এগিয়েছিলো তার উপর । ১৯শ শতাব্দীর প্রথমার্ধে দ্বান্দ্বিক ও ঐতিহাসিক বস্তুবাদের আত্মপ্রকাশের পূর্বশর্তগুলো গড়ে ওঠেছিলো । তখনকার ক্লাসিকাল জার্মান দর্শনের প্রগতিশীল ভাবধারণা এ ক্ষেত্রে বিশেষভাবে অবদান রেখেছিলো । সে সময়ের হেগেল ও ফয়েরবাখের দর্শন ছিলো মার্কসবাদের সরাসরি তত্ত্বগত উৎস । মার্কস ও এঙ্গেলস শ্রমিকশ্রেণির বিপ্লবী অবস্থান থেকে হেগেলের দ্বন্দ্ববাদ এবং ফয়েরবাখের বস্তুবাদকে সমালোচনা করেছিলেন গবেষণার মাধ্যমে । এভাবেই তাদের দার্শনিক অভিমত …

বিস্তারিত পড়ুন

প্রকৃতিক বিজ্ঞান বিষয়ক পূর্বশর্তসমূহ

১৯শ শতাব্দীর শুরুর দিকে পৃথিবীতে বিজ্ঞান এমন একটা পর্যায়ে উন্নীত হয়েছিলো যা দ্বন্দ্বমূলক বস্তুবাদের আত্মপ্রকাশে সহায়ক হয়েছিলো । বলবিদ্যা, জ্যোতির্বিদ্যা, রসায়নবিদ্যা, জীববিদ্যা ও অন্যান্য প্রাকৃতিক বিজ্ঞানের বিকাশ পৃথিবীর বস্তুগত ঐক্যকে দেখিয়েছিলো । আরো দেখিয়েছিলো প্রাকৃতিক প্রক্রিয়াগুলোর দ্বান্দ্বিক চরিত্রকে । ঐ সময়ের তিনটা বৈজ্ঞানিক আবিষ্কার দ্বন্দ্বমূলক বস্তুবাদ প্রতিষ্ঠায় বিরাট অবদান রেখেছিলো । (১) শক্তির অক্ষয়তা ও রূপান্তরের নিয়ম : ১৮৪২-১৮৪৫ সালে, জার্মান পদার্থবিজ্ঞানী জুলিয়াস রবার্ট মায়ার শক্তির অক্ষয়তা ও রূপান্তরের নিয়ম …

বিস্তারিত পড়ুন

ভাবনার এরোপ্লেন- ১

অন্যান্য ধর্মের প্রভাবে বিশেষ করে বর্বরতম ধর্ম ইসলামের শ্রেষ্ঠত্বের দাবিতে অর্ধমৃত ভাইরাস হিন্দুরাও এক ভয়াবহ মৌলবাদি দানবে রূপান্তরিত হয়ে যাচ্ছে। মৌলবাদের জবাবে মৌলবাদ, ধর্মান্ধতার বদলে ধর্মান্ধতা, খেলাফতের জবাবে রামরাজ্য আমাদেরকে আরো এক কুৎসিত পরিস্থিতির দিকে ঠেলে দিচ্ছে। খুব বেশি দূরে নয় শীঘ্রই হয়তো হিন্দু ধর্মান্ধদের দৌরাত্বে কাপঁবে বিশ্ব মানবতা ; ইসলামের মতোই। হয়তো আরো জমে উঠবে এই দুই কুকুরের লড়াই; কোন এক কাল্পনিক হাড়ের দখলের চেষ্টায়। আশ্চর্য হলেও সত্য, আমাদের …

বিস্তারিত পড়ুন

যাদু কি আসলে সত্যি ?

যাদু নিয়ে মানুষের কৌতুহলের শেষ নেই । এই যাদু কি আসলে সত্যি ? যদি সত্যি হয় তাহলে যাদু বিদ্যায় পারদর্শীরা কেন পৃথিবীতে কতৃত্ব করতে পারছে না । নাকি প্রত্যক্ষ বা পরোক্ষভাবে কতৃত্ব করছে ? ব্রিটিশ নৃবিজ্ঞানী জেমস ফ্রেজার মনে করতেন মানুষের চিন্তার বিবর্তনের তিনটি ধাপ হল যাদু, ধর্ম ও বিজ্ঞান । যদি বিজ্ঞনকে বাদ দিয়ে, যাদু আর ধর্ম নিয়ে আলোচনা করি তাহলে মাথার মধ্যে আর একটি প্রশ্ন চলে আসে । …

বিস্তারিত পড়ুন

দ্বিতীয় অধ্যায় মার্কসীয় দর্শনের আত্মপ্রকাশ ও পূর্বশর্তসমূহ

আমরা যদি দর্শনের ইতিহাস আলোচনা করি, তা হলে এক তীব্র সংগ্রামের দেখা মিলবে ; সেটা হচ্ছে বস্তুবাদ এবং ভাববাদের মধ্যে সংগ্রাম । দর্শনের সৃষ্টিলগ্ন থেকে অনেক দার্শনিক বস্তুবাদের কথা বলে শেষে ভাববাদের স্রোতেই গা ভাসিয়ে দিয়েছিলেন । একমাত্র জার্মান দার্শনিক কার্ল মার্কসই সত্যিকার বৈজ্ঞানিক বস্তুবাদের দর্শন প্রতিষ্ঠা করতে সক্ষম হয়েছিলেন । তখনকার সমাজে বৈজ্ঞনিক চিন্তার বিকাশ এবং সার্বিকভাবে সমাজের বিকাশের ফল হলো মার্কসীয় দর্শন । বাস্তবে কার্ল মার্কস (১৮১৮-১৮৮৩) এবং …

বিস্তারিত পড়ুন

গৌতম বৌদ্ধ কি ছিলেন ?

বৌদ্ধ দর্শনে ঈশ্বরের কোন স্থান নেই। বস্তুত বুদ্ধদেবের জীবনের চরম লক্ষ্য ও ব্রত ছিল জগতে যে দুঃখ-দুর্দশা হচ্ছে তা থেকে মানুষের মুক্তি লাভ করা। তিনি তত্ত্ববিষয়ক আলোচনা পরিহার করে চলতেন। বুদ্ধদেব কর্মনিয়মকে সকলের উপরে স্থান দিয়েছেন। কারণ তিনি মনে করতেন কর্মের দ্বারাই জগতের দুঃখের যুক্তিযুক্ত ব্যাখ্যা দেওয়া যায়। কর্মের ফলেই জীবের উদ্ভব। বস্তু এবং চিন্তা সবই কর্মফল। সুতরাং সৃষ্টিকর্তা রূপে ঈশ্বরের অস্তিত্বে বিশ্বাসের কোন প্রয়োজন নেই। তাছাড়া বৌদ্ধ দর্শন হল …

বিস্তারিত পড়ুন
error: আমার কলম কপিরাইট আইনের প্রতি শ্রদ্ধশীল সুতরাং লেখা কপি করাকে নিরুৎসাহিত করে। লেখার নিচে শেয়ার অপশন থেকে শেয়ার করার জন্য আপনাকে উৎসাহিত করা হচ্ছে।