দ্বিতীয় অধ্যায় মার্কসীয় দর্শনের আত্মপ্রকাশ ও পূর্বশর্তসমূহ

আমরা যদি দর্শনের ইতিহাস আলোচনা করি, তা হলে এক তীব্র সংগ্রামের দেখা মিলবে ; সেটা হচ্ছে বস্তুবাদ এবং ভাববাদের মধ্যে সংগ্রাম । দর্শনের সৃষ্টিলগ্ন থেকে অনেক দার্শনিক বস্তুবাদের কথা বলে শেষে ভাববাদের স্রোতেই গা ভাসিয়ে দিয়েছিলেন । একমাত্র জার্মান দার্শনিক কার্ল মার্কসই সত্যিকার বৈজ্ঞানিক বস্তুবাদের দর্শন প্রতিষ্ঠা করতে সক্ষম হয়েছিলেন । তখনকার সমাজে বৈজ্ঞনিক চিন্তার বিকাশ এবং সার্বিকভাবে সমাজের বিকাশের ফল হলো মার্কসীয় দর্শন । বাস্তবে কার্ল মার্কস (১৮১৮-১৮৮৩) এবং …

বিস্তারিত পড়ুন

গৌতম বৌদ্ধ কি ছিলেন ?

বৌদ্ধ দর্শনে ঈশ্বরের কোন স্থান নেই। বস্তুত বুদ্ধদেবের জীবনের চরম লক্ষ্য ও ব্রত ছিল জগতে যে দুঃখ-দুর্দশা হচ্ছে তা থেকে মানুষের মুক্তি লাভ করা। তিনি তত্ত্ববিষয়ক আলোচনা পরিহার করে চলতেন। বুদ্ধদেব কর্মনিয়মকে সকলের উপরে স্থান দিয়েছেন। কারণ তিনি মনে করতেন কর্মের দ্বারাই জগতের দুঃখের যুক্তিযুক্ত ব্যাখ্যা দেওয়া যায়। কর্মের ফলেই জীবের উদ্ভব। বস্তু এবং চিন্তা সবই কর্মফল। সুতরাং সৃষ্টিকর্তা রূপে ঈশ্বরের অস্তিত্বে বিশ্বাসের কোন প্রয়োজন নেই। তাছাড়া বৌদ্ধ দর্শন হল …

বিস্তারিত পড়ুন

বাংলাদেশের বড় সমস্যা শিশুশ্রম

সারা বিশ্বের এখন ভয়ংকার পেশার নাম শিশু শ্রম। দিনে দিনে এই শ্রমের শ্রমিকের সংখ্যা বাড়ছে। বিভিন্ন এনজিও সংস্থা , সরকারসহ কাজ করে যাচ্ছে, আলোচনাও করছে কিন্তু কাজের কাজ কিছুই হচ্ছে না। দুই বেলা অন্নের জন্য বাবা মায়েরা বাধ্য হয় তাদের সন্তানকে কাজে দিচ্ছে । বাধ্য হচ্ছে ঝুঁকির্পূণ কাজ করতে। একটি বড় সিন্ডিকেট শিশুদের ব্যবহার করছে। কিন্তু কেউই এদের নাম বলবে না কারণ সবারই জানের ভয় আছে। সারা দেশে প্রায় ৪৫ …

বিস্তারিত পড়ুন

পরকীয়া ও পুরুষ

পরকীয়া পুরুষ-নারী উভয়্ই করে। কিন্তু পুরুষের পরকীয়ার সংখ্যা অনেকটা বেশি। নারী মূলত হতাশা, অপ্রাপ্তি, মানসিক টানাপোড়েন, অপূর্ণ চাহিদা, না পাওয়া ইত্যাদি বিভিন্ন কারণে পরকীয়ায় জড়িয়ে পড়ে। পুরুষ পরকীয়া করে তার বহুগামী মানসিকতা থেকে। শত শত বছর পূর্ব হতেই পুরুষ পরকীয়া করে। সম্ভবত পরকীয়ার জিন রয়েছে পুরুষের শরীরে। পুরুষ এক নারীতে সন্তুষ্ট থাকে না। পুরুষের পরকীয়ার ব্যাপারটি অনেকটা স্বাভাবিক ভাবেই নেওয়া হয়। “পুরুষ-মানুষ ওরকম একটু-আধটু করবেই!” কিন্তু নারী করলেই মহাভারত যে …

বিস্তারিত পড়ুন

নারীকে দাসী হিসেবে গড়ে উঠার শিক্ষা দিচ্ছে বই

অষ্টম শ্রেণীর গার্হস্থ্য অর্থনীতি বইয়ের ১১১ নম্বর পৃষ্টায় দেখেন, নারী অধিকার কিভাবে খর্বিত হয়েছে, নারীকে কিভাবে কেন্দ্রীভূত করা হয়েছে। এমন পোশাক পড়া যাবে না যেটি পুরুষের কাম জাগ্রত করে, ইভটিজিং করলে তার প্রতিবাদ করা উচিৎ নয় এতে ক্ষতি হতে পারে, নারীদের কাজ ঘরে রান্না করাসহ নারী আক্রান্ত হয়েছে পুরুষতন্ত্রের যাঁতাকলে। এই পাঠ্যবইগুলোর উপর এরকম আগ্রাসন বরাবরই দেশ শত বছর পিছনে যাওয়ার ইঙ্গিত বহন করছে। ১ম থেকে ১০ম শ্রেণীর পাঠ্যবইগুলোর মধ্যে …

বিস্তারিত পড়ুন

জামিলার কোরবানীর কুটুম

আজ সারাদিন বেশ ঝক্কি গেছে। তবুও বিছানায় শুয়ে এপাশ ওপাশ করে জামিলা। ঘুম আসে না কিছুতেই। মেয়েটাকে কেন যে ওভাবে মারতে গেলো। মেয়েটা কেঁদে কেঁদে না খেয়েই কখন ঘুমিয়ে পড়েছে। জামিলা নিজেও খায়নি। ঈদের দিন মেয়েটা খায়নি দেখে নিজের গলা দিয়েও খাবার নামে নি জামিলার। কোরবানীর ঈদ মানেই মহাযঞ্জ। শহর থেকে দেবর আসে পরিবার নিয়ে। একাই একটা গরু কোরবানী দেয়। জমিলাদের একটা আস্ত গরু কোরবানী দেয়ার সামর্থ্য নেই। দেবরের কারণে …

বিস্তারিত পড়ুন

মেয়েদের প্রেম এবং পরিবার

পরিবারের মেয়ে সদস্যটি যখন বড় হয়ে ওঠে তখন পরিবারের অন্যান্য সদস্যরা দুশ্চিন্তাগ্রস্ত হয়ে পড়ে। মেয়েটি কই যাবে, কেন যাবে, কি প্রয়োজন এমন হাজারটা কৈফিয়ত তাকে উঠতে-বসতে দিতে হয়। মেয়েটির স্বাভাবিক চলাফেরা ব্যাহত হয়। পরিবারের দুশ্চিন্তার অন্যতম কারণ মেয়েটি প্রেমে পড়লো কি না! মেয়ের সাথে সারাদিন মায়ের লেগে থাকা, সে হাসলে-কাঁদলে, বাড়িতে বন্ধু এলে জেরা করা, স্কুল-কলেজ-কোচিং এর বাইরে বন্ধুদের সাথে কোথাও যেতে চাইলে তুলকালাম করা- এসব একটি উঠতি বয়সের মেয়ের …

বিস্তারিত পড়ুন

রামুতে অযত্ন-অবহেলায় প্রত্নতাত্ত্বিক নিদর্শন

প্রাচীন নিদর্শন মানেই ইতিহাস আর ইতিহাস মানেই অশেষ সত্য গল্প। কক্সবাজারের রামুতেই পড়ে আছে এক প্রত্নতাত্ত্বিক নিদর্শন। বুদ্ধ শব্দের অর্থ জ্ঞানী। বুদ্ধ মানবতার মহানায়ক। সারাবিশ্বের জ্ঞানতাপসরা মহামানব গৌতম বুদ্ধকে জ্ঞানের ভাণ্ডার হিসেবে মানে। গৌতম বুদ্ধের মহাপরিনির্বান লাভের পর থেকে সাধারণ মানুষরা গৌতম বুদ্ধকে পৃথিবীর জন্ম থেকে জন্মান্তর মানুষের মাঝে পৌঁছে দেওয়ার লক্ষ্যে বিভিন্ন জায়গায় বুদ্ধ মূর্তিসহ নানান স্থাপনা স্থাপন করেন। কক্সবাজার জেলার রামু উপজেলার পূর্ব রাজারকুল থেকে মনিরঝিল যাওয়ার পথেই …

বিস্তারিত পড়ুন

সন্তান আপনার, দায়িত্বও আপনার !

মা-বাবার কাছে সন্তানরা অমূল্য ধন। এই ধনকে মানুষ করতে মা-বাবারা তাদের জীবনের অর্ধেকটা সময় শেষ করে দেন । বিশেষ করে মা। গর্ভে আসা থেকে শুরু করে একদম শেষ বয়স পর্যন্ত । আবার এই মা বাবায় সন্তানের জীবন নষ্ট করে। কিভাবে? যেমন আদরে সন্তান কে মানুষের মতো মানুষ করার জন্য বেশি আদর করতে গিয়ে আদরের চেয়ে অনাদর বেশি করেন, রীতিমতো সন্তানের জীবন অতিষ্ট করে তোলে। ফলে সন্তানের মনে বিরুপ প্রতিক্রিয়া সৃষ্টি …

বিস্তারিত পড়ুন

আইনজীবী বলতে আমরা যা বুঝি

আইন। একটি রাষ্ট্রকে সুশৃঙ্খল এবং শান্তির সাথে পরিচালনা করার জন্যই আইনের সৃষ্টি। আইন মানুষকে অন্যায় কাজে বাধা দেয়, রাষ্ট্রকে সুন্দরভাবে পরিচালনা করে। সবাই আইনজীবী কি, তার সাথে বেশ ভালো ভাবেই পরিচিত। কিন্তু বেশিরভাগ মানুষ ভুল ধারণা দিয়েই আইনজীবীদের পরিমাপ করে। আমার মনে আছে, যখন আমি আইন বিষয়ে লেখাপড়া করার জন্য মনস্থির করি তখন স্বয়ং আমার বাবাও বলেছিলো আমি মারা গেলে নরকের কীট হবো। মানে, আমি বড় হয়ে আইনজীবী হবো আর …

বিস্তারিত পড়ুন

ধর্ম নারী মুক্তির অন্তরায়

বাংলাদেশে বহুল প্রচলিত ধর্মের সংখ্য চারটি। ইসলাম, হিন্দু, বৌদ্ধ, খ্রিষ্টান। ধর্ম এমন এক ব্যাবস্থা যা মানুষের চলমান জীবনে আইনের মতো শাসন করে থাকে, কিন্তু তা বরাবরই আধ্যাত্মিক। ধর্ম শুধুই পরকাল নির্ভর, বলতে গেলে পরকালের স্বর্গ – নরকের ভয় দেখিয়ে মানুষকে শাসন করে চলেছে বর্তমান ধর্মীয় গুরুরা। কেউ আমার সামনে কখনো ধর্ম কথাটি উচ্চারণ করলেই আমার ছোটবেলার কথা মনে পড়ে যায়। যখন আমি তৃতীয় শ্রেণীতে পড়ি তখন বেশ দুষ্টু ছিলাম, বাড়াবাড়ি …

বিস্তারিত পড়ুন

আপনার মেয়েকে ধর্ষণ করতে দিচ্ছেন না তো ?

আপনার মেয়ে আছে, দেখতে শুনতে খুব ভালো। এখনো সবেমাত্র ক্লাস নাইন অথবা টেন এ পড়ছে। আপনার মেয়ে, দায়িত্ব আপনার যতদিন না সে নিজেকে বুঝতে শিখছে এবং প্রাপ্ত বয়স্ক হচ্ছে। ছোট কাল থেকে কত টাকা পয়সা খরচ করে মেয়েকে বড় করে তুললেন নিশ্চয় তার একটি সুন্দর জীবন তাকে উপহার দেওয়ার জন্য। মনে আছে? ছোট কালে মেয়ের একটু অসুখ হলে কিংবা স্কুল জীবনে কেউ তাকে টিজ করলে আপনি কতটুকু চিন্তিত হতেন! এখন …

বিস্তারিত পড়ুন

পরিবার উচ্ছেদ, জ্বলে ওঠে লুচ্চারা

বিদ্যমান উৎপাদন ব্যবস্থা বদলের সঙ্গে সঙ্গে সমাজ থেকে সকল ধরণের পরিবার-ব্যবস্থা বিলুপ্তির প্রসঙ্গে কার্ল মার্কস-এঙ্গেলস বলেন, “পরিবার উচ্ছেদ! উগ্র পরিবর্তনকামীরা পর্যন্ত কমিউনিস্টদের এই গর্হিত প্রস্তাবে জ্বলে ওঠে। আধুনিক পরিবার অর্থাৎ বুর্জোয়া পরিবারের প্রতিষ্ঠা কোন ভিত্তির উপর? সে ভিত্তি হলো পুঁজি, ব্যক্তিগত লাভ। এই পরিবারের পূর্ণ বিকশিত রূপটি শুধু বুর্জোয়াশ্রেণীর মধ্যেই আবদ্ধ। কিন্তু এই অবস্থাই পূরক দেখা যাবে প্রলেতারিয়েতদের পক্ষে পরিবারের কার্যত অনুপস্থিতিতে এবং প্রকাশ্য পতিতাবৃত্তির ভিতর। এই পূরক লোপ পাওয়ার …

বিস্তারিত পড়ুন

রোহিঙ্গাদের দীর্ঘ এক অধ্যায় শেষ হতে চলেছে

রোহিঙ্গাদের দীর্ঘ এক অধ্যায় শেষ হতে চলেছে… হিন্দু না ওরা মুসলিম ওই জিজ্ঞাসে কোন জন ? কাণ্ডারি বলো মরিছে মানুষ সন্তান মোর মার । রোহিঙ্গা বিষয়ক এটাই সার কথা। কাজী নজরুলের এই কথাটা আবার পড়ুন, বার বার পড়ুন, হাজার বার পড়ুন, যতোক্ষণ না উপরের লাইন দুটোর প্রতিটি বর্ণ, প্রতিটি শব্দ, বাক্য আপনার মননে ও মগজে গেঁথে না যাচ্ছে, আপনার ভিতরকে রিখটার স্কেলে আট মাত্রার ভূ-কম্পনের মতো নাড়িয়ে না দিয়ে যাচ্ছে, …

বিস্তারিত পড়ুন

দর্শনের শ্রেণি চরিত্র

আমাদের কালে সমাজের মূল দুটো শ্রেণি হচ্ছে শ্রমিক শ্রেণি ও বুর্জোয়া বা ধনিক শ্রেণি । পৃথিবীতে এযাবৎকালে যে সব দার্শনিক তত্ত্বের উদ্ভব হয়েছে এবং এসময়ে বর্তমান আছে তা হয় বস্তুবাদী নয় ভাববাদী । বস্তুবাদ আর ভাববাদের মাঝামাঝি কোনো দর্শন নেই । বস্তুবাদী দর্শন শ্রমিক ও মেহনতি মানুষের পক্ষ কাজ করে আর ভাববাদ ধনিক শ্রেণি ও শোষকগোষ্ঠীর পক্ষে কাজ করে । এখানেই দর্শনের পক্ষপাতিত্ব, শ্রেণি চরিত্র ফোটে ওঠে । (ক) দর্শন …

বিস্তারিত পড়ুন

দ্বন্দ্বমূলক বস্তুবাদের আওতা

একটি বিজ্ঞান হিসেবে দর্শনের বিষয়বস্তু যুগে যুগে পরিবর্তিত হয়ে আসছিলো । প্রথমে পৃথিবীর সব জ্ঞান দর্শনের আওতায় ছিলো । প্রাচীন দার্শনিকরা প্রকৃতি বিজ্ঞানীও ছিলেন । নতুন নতুন বিশেষ বিজ্ঞানেও বিশেষজ্ঞ ছিলো । তখন অনেক বিশেষ বিজ্ঞানের উদ্ভব হয়েছিলো । যেমন – জ্যোতির্বিদ্যা, পদার্থবিদ্যা, বলবিদ্যা, জীববিদ্যা, রসায়ন ও অন্যান্য আরো বিজ্ঞানের শাখা । সেই সাথে বিজ্ঞানগুলো থেকে দর্শন পৃথক হয়ে গিয়েছিলো । সকল বিজ্ঞানের উপর দর্শন এক আধিপত্য প্রতিষ্ঠা করেছিলো, অর্থাৎ …

বিস্তারিত পড়ুন

প্রেম এবং ভালোবাসা , মন নাকি দেহ ?

দেহ এবং মন নিয়েই প্রেম এবং ভালোবাসার পূর্ণতা বলে আমরা সবাই জানি এবং এটাই চরম সত্য বলে মনে করি । আসলে কি তাই? আমার মতে প্রেম কিছু নয়, শুধুমাত্র বয়সের এবং প্রাকৃতিক নিয়মের ক্রিয়াই প্রেম অথবা ভালোবাসা । খুব ঠান্ডা মাথায় আমার লেখার উপর উত্তেজিত না হয়ে চিন্তা করে দেখুন, আমি যদি বস্তুবাদী হই আমার কাছে তো মনের সংঙ্গাটা ভাবের একটা অংশ মনে করা উচিৎ এবং দেহকে প্রাধান্য দেওয়া প্রয়োজন …

বিস্তারিত পড়ুন

দার্শনিক পদ্ধতি দ্বান্দ্বিকতা ও অধিবিদ্যা

দর্শনের বুনিয়াদী প্রশ্নের মতো আরো একটি প্রশ্ন আছে । সেটি হচ্ছে, পৃথিবী কি এক জায়গায় দাঁড়িয়ে আছে, না বিকশিত হচ্ছে ? দর্শনের এই প্রশ্নের উত্তর দেয়া হয়েছে পরস্পর বিপরিত দুই পদ্ধতিতে । এর একটি হচ্ছে দ্বান্দ্বিকতা(Dialectics), আর অন্যটি হচ্ছে অধিবিদ্যা(Metaphysics) । পদ্ধতি হলো লক্ষ্য অর্জনের উপায় যার সাথে যুক্ত থাকে নির্দিষ্ট নীতিসমূহ, তত্ত্বগত গবেষণা ও ব্যবহারিক কাজের ধরন । এসব মিলিয়েই হয় একটি পদ্ধতি । কোনো বৈজ্ঞানিক বা ব্যবহারিক সমস্যা …

বিস্তারিত পড়ুন

দর্শনের বুনিয়াদী প্রশ্ন

আমাদের পারিপার্শ্বিক জগতের সবকিছুই হয় বস্তুগত নয় ভাবগত । বিষয়গতভাবে যেগুলোর অস্তিত্ব আছে সেগুলো বস্তুগত । এগুলো মানব-চৈতন্যের বাইরে অর্থাৎ এসবের অস্তিত্ব মানুষের চেতনার উপর নির্ভর করে না । যেমন – পৃথিবী, মহাবিশ্ব ও সামাজিক ব্যাপারগুলো । অন্যদিকে যেগুলো মানুষের চেতনায় বিরাজ করে বা যুক্ত থাকে মানুষের মানসিক ক্রিয়াকলাপের সাথে সেগুলো হলো ভাবগত বা আত্মিক । যেমন – চিন্তা, অনুভূতি, ভাবাবেগ ইত্যাদি । ভাবগত ও বস্তুগত ছাড়া পৃথিবীতে কোনো কিছু …

বিস্তারিত পড়ুন

নারীর মন

একটা ছেলে একটা মেয়েকে ভালোবেসে অন্ধ হয়ে যেতে পারে কিন্তু একটা মেয়ে সেটা পারে না। কেননা নারীর মন কি চায় সেটা সে নিজেও জানে না। যে কারণে নারীরা খুব সহজেই একের অধিক মানুষের প্রেমে পরে। আসলে একটা মেয়ে পৃথিবীর সবকিছু বুঝতে পারলেও কে তাকে প্রকৃত ভালোবাসে সেটা বুঝতে পারে না। যখন বুঝতে পারে তখন আর কিছুই করার থাকে না। ভালোবাসা খুব মধুর একটি শব্দ। যার কাছে পৃথিবীর সকল প্রাণী হার …

বিস্তারিত পড়ুন
error: আমার কলম কপিরাইট আইনের প্রতি শ্রদ্ধশীল সুতরাং লেখা কপি করাকে নিরুৎসাহিত করে। লেখার নিচে শেয়ার অপশন থেকে শেয়ার করার জন্য আপনাকে উৎসাহিত করা হচ্ছে।