ট্যাগ সংরক্ষণাগার

স্যোশাল মিডিয়া নারীদের ব্যবহারে সতর্কতা

বর্তমানে ফেসবুক ইউজার বাড়ছে। এই বাড়াটা এখন ঠেকেছে আমি মনে করি। এক সময় মোবাইল সবার কাছে ছিলনা। সেটা বেশ পুরনো! সেরকম ফেসবুক ইউজারও পুরনো। মুহুর্তে যদিও ফেসবুক আইডি তৈরি হচ্ছে হাজার হাজার ও হবেও । তথাপি,এখন এই আইডিগুলোর ইউজার বেশীর ভাগই পুরনো ব্যক্তি ইউজাররা। অর্থাৎ, এখানে অসৎ লোকেরা তার রিয়েল আইডির বাহিরেও একাধিক আইডি ব্যবহার করে থাকে। এটা আগে অনেকটা ধোঁয়াশা থাকলেও এখন অনেকটা পরিষ্কার। মোবাইল প্রথম, প্রথম ব্যবহারের কিছু …

বিস্তারিত পড়ুন

নারীমুক্তির দায় নারীদের

অনেক নারী আছে যারা সো-কল্ড নারীবাদী। নারীমুক্তির আন্দোলনের নামে পুরুষতান্ত্রিক সমাজ ভেঙে নারীতন্ত্র প্রতিষ্ঠা করতে চায়। পৃথিবীটা সবার, নারী এবং পুরুষের, ব্যবধান শুধু লিঙ্গ ভিত্তিক। সেদিন এক নারীর সাথে মদ গিলতে আর সিগারেট টানতে টানতে আড্ডা দিচ্ছিলাম। হঠাৎ আড্ডা গিয়ে ঠেকলো নারীবাদে। সে নারী সরাসরি পুরুষদের চৌদ্দগোষ্ঠী উদ্ধার করে দিচ্ছিলো। নারীবাদী পুরুষ সে জীবনে অনেক দেখেছে, সুযোগ পেলেই নাকি বিছানা ভাগ করার অফার করেছে। ব্লা ব্লা ব্লা। কথা হলো সবাই …

বিস্তারিত পড়ুন

নারীর প্রতি যৌন সহিংসতা বন্ধ করুন

প্রতিদিনের পত্রিকা খুললেই নারীর প্রতি যৌন হয়রানী,নির্যাতন,ধর্ষণ ও ধর্ষণের পর হত্যার খবর। রাজনৈতিক প্রতিহিংসা,জমি নিয়ে বিরোধ, পারিবারিক শত্রুতা, ব্যক্তিগত বিদ্বেষ সব ক্ষোভের লক্ষ্যবস্তু হচ্ছে নারী। যেকোন তুচ্ছ ঘটনায় নারী ধর্ষণের শিকার হচ্ছে নিজ বাড়ি,অফিস এমনকি গণপরিবহনেও। নারীর জন্য একটি সুস্থ,সুন্দর সমাজ,দেশ আমরা গড়ে তুলতে পারি নি। নারীর জন্য নিরাপদ কর্মক্ষেত্র বা গণপরিবহন ব্যবস্থাও নেই আমাদের। কিন্তু একটি নিরাপদ মানসিকতা কি গড়ে তুলতে পেরেছি আমরা ! নারী-পুরুষ একসাথে তাল মিলিয়ে দেশ …

বিস্তারিত পড়ুন

নারীর ক্ষমতায়ন

যদি বলি “নারীর অধিকার হরণে নারীরাই বলিষ্ঠ ভূমিকায় অবতীর্ন।” খুব কি ভুল হবে? একেবারেই না।কেননা, বিশ্বে যা কিছু মহান সৃষ্টি চির কল্যানকর তার অর্ধেক যেমন নারী সৃষ্টি করেছে তেমনি ট্রয় নগরী ধ্বংস থেকে শুরু করে অসংখ্য নারীর প্রতিভা আর নারী ক্ষমতায়নের পিছে লাগামটিতেও ওই নারীই অগ্নিপাত করেছে।হনুমানের লেজে আগুন ধরিয়ে সমস্ত লঙ্কা পুড়িয়ে দেবার দায় তবে কার?কখনোই এক পাক্ষিকভাবে পুরুষের নয়।বরঞ্চ বর্তমান যুগে আধুনিক পুরুষরা নারীর প্রতি হয়ে উঠেছে যথেষ্ট …

বিস্তারিত পড়ুন

নারীর কোন ধর্ম নেই

হুমায়ুন আজাদ বলেছিলেন “রামমোহন রায় হিন্দু নারীকে দিয়েছেন প্রাণ, ইশ্বরচন্দ্র বিদ্যাসাগর দিয়েছেন জীবন; রামমোহনের যেখানে শেষ, বিদ্যাসাগরের সেখানে শুরু”। রামমোহন চেয়েছিলেন সহমরণের আগুন থেকে শুধু নারীর প্রাণটুকু রক্ষা করতে। কিন্তু বিদ্যাসাগর বুঝেছিলেন বেঁচে থাকার জন্যে শুধু নিশ্বাস নিলেই হয় না, জীবন উপভোগ করেই বাঁচতে হয়। চিতার আগুনে ছাই না হয়ে বিধবার প্রাণটি বেঁচে গেলেও তাকে আজীবন ফলমূল ও একাহারী হয়ে মৃত স্বামীর ধ্যান করে বেঁচে থাকতে হবে। বিধবার থাকবে না …

বিস্তারিত পড়ুন

অপ-তসলিমা এবং তার অপ-সাহিত্য

আমি আতঙ্কের সঙ্গে লক্ষ্য করেছি, আমার অনেক বন্ধু, যারা নারীর পক্ষে লিখছেন বলে মনে করছেন, তারা অনেকেই একটা বিশেষ ছকের মধ্যে আবর্তিত হচ্ছেন। সেই ছকটা তসলিমার তৈরি। ছকের বৃত্তে বন্দি হয়ে তারা প্রায়শঃই অশ্লীল শব্দে, বিকৃত বাংলায়, অশুদ্ধ বাক্যে তাদের চিন্তার দৈণ্যদশা প্রকাশ করে যাচ্ছেন। যা তসলিমা এবং তার অপসাহিত্যের প্রধান বৈশিষ্ট্য। আমি বিষয়টাকে নারী তথা আমাদের সুস্থতার জন্য বিপদজনক মনে করেছি। আমি কিছুদিন এদের একটু বাজিয়ে দেখেছি। ফলাফল? ভয়াবহ! …

বিস্তারিত পড়ুন

জেগে ওঠো, বহ্নিশিখা

নারীদের মধ্যে প্রথম শ্রেণীর রাষ্ট্রনায়ক আছে।বৈজ্ঞানিক আছে।সাহিত্যিক আছে।যোদ্ধা আছে।ব্যবসায়ী আছে।ভাস্কর আছে।নভোচারী আছে।শিল্পী আছে।সবকিছু আছে। সব।হাজার বছর ধরে পুরুষদের দমন নিপীড়ন অবদমন বৈষম্যের মধ্যে থেকেও পাথরের ফুলের মতো অদম্য হয়ে ওঠেছে অনেক নারী। শত কোটি প্রতিকুলতার মধ্যেও এগিয়ে এসেছে সভ্যতার মিছিলে।যদি পুরুষ তন্ত্রের শেকল ছিঁড়ে বেড়িয়ে আসতে পারত, তবে নিশ্চিতভাবেই নারী দেখাতে পারত আরো বহু কিছু। এ যুগে গায়ের জোর অচল হয়ে যাচ্ছে। জানোয়ারদের মতো গায়ের জোরে কুক্ষিগত করার পৌরুষত্ব এখন …

বিস্তারিত পড়ুন

নারীর যোগ্যতা ও পুরুষের ভাবনা

শারীরিক গঠন একটি মানুষের যোগ্যতার মাপকাঠি হতে পারে না। কিন্তু শারীরিক সৌন্দর্যকে একটি যোগ্যতা বলেই ধরা হয় মেয়েদের ক্ষেত্রে। একটি মেয়ে কালো না ফর্সা, বেঁটে না লম্বা, মাথায় চুল আছে কি নেই, নাক খাড়া না বোঁচা এগুলো তার যোগ্যতার(?) মধ্যে পড়ে। মেয়ের গায়ের রঙ কালো হলে পরিবারের ঘুম হারাম হয়ে যায় তাকে যে কোনো উপায়ে ফর্সা বানানোর চেষ্টায়। মেয়েটি যতই উচ্চ শিক্ষিত হোক না কেন, সেটিকে তার যোগ্যতা হিসেবে দেখতে …

বিস্তারিত পড়ুন

পুরুষের ষড়যন্ত্র এবং নারী নারীর শত্রু

পুরুষতন্ত্রের একটি দারুণ রকমের ষড়যন্ত্র হলো নারীকে নারীর পিছনে লাগিয়ে রাখা। ‘নারীই নারীর শত্রু’- টাইপ কিছু কথা নারীর মগজে ঢুকিয়ে দেওয়া। একদল নারী যাতে আরেক দলকে ঈর্ষা করে তার বন্দোবস্ত করা। গৃহিণী ঈর্ষা করবে কর্মজীবী নারীর স্বাধীনতা, সচ্ছলতায় আর কর্মজীবী নারী ঈর্ষা করবে গৃহিণীর নিরাপত্তা, সুখ-সাচ্ছন্দের। আবার পুরুষ তার নিজের ঘরের ভিতরেও স্ত্রী ও মাতাকে এবং বোন ও স্ত্রীকে একে অন্যের পিছনে লাগিয়ে রাখে। অথচ পুরুষের বিচরণ কিন্তু ঘরে-বাইরে সবখানেই। …

বিস্তারিত পড়ুন

নারীর মন

একটা ছেলে একটা মেয়েকে ভালোবেসে অন্ধ হয়ে যেতে পারে কিন্তু একটা মেয়ে সেটা পারে না। কেননা নারীর মন কি চায় সেটা সে নিজেও জানে না। যে কারণে নারীরা খুব সহজেই একের অধিক মানুষের প্রেমে পরে। আসলে একটা মেয়ে পৃথিবীর সবকিছু বুঝতে পারলেও কে তাকে প্রকৃত ভালোবাসে সেটা বুঝতে পারে না। যখন বুঝতে পারে তখন আর কিছুই করার থাকে না। ভালোবাসা খুব মধুর একটি শব্দ। যার কাছে পৃথিবীর সকল প্রাণী হার …

বিস্তারিত পড়ুন

পুরুষতন্ত্রের কাছে নারী মানেই ভোগ্যপণ্য

আমরা নারীরা কোথাও কোন লেভেলেই নিরাপদ না। ঘরে, বাইরে, কোথাও না। বাড়ির দারোয়ান, ড্রাইভার, লিফট্ম্যান, রিকশাওয়ালা, ফ্লেক্সিলোডের দোকানদার, ওষুধের দোকানদার , লন্ড্রি ওয়ালা, দর্জি, বাসের ড্রাইভার কন্ট্রাকটার, অফিসের বস, কলিগ, পিয়ন, ডাক্তার,ক্লাসের টিচার, মুদির দোকানি, শালার লিস্ট ই ফুরায় না, ঘরের চাচা, প্রাইভেট টিউটর সব এক লেভেলের হারামি। উত্তক্ত হওয়ার জন্য অনেক মেয়েকে বেঁছে নিতে হয়েছে আত্মহত্যার পথ। এখন সেই লেভেল ক্রস করে নেক্সট লেভেলে পৌঁছে গেছে, মেয়েদের এখন খুন …

বিস্তারিত পড়ুন
error: আমার কলম কপিরাইট আইনের প্রতি শ্রদ্ধশীল সুতরাং লেখা কপি করাকে নিরুৎসাহিত করে। লেখার নিচে শেয়ার অপশন থেকে শেয়ার করার জন্য আপনাকে উৎসাহিত করা হচ্ছে।